Tuesday, November 21, 2017

নতুন সেরা বাংলা জোকস best Bangla jokes

নতুন সেরা বাংলা  জোকস best Bangla jokes

-*১*-বাবা ও ছেলে
বাবা একটি ঘড়ি নিয়ে ছেলের ঘরে এসে বলল বল্টু অনেক দিন হল ঘড়িটি চলছে না একটু দেখবি
ছেলেঃ ঘড়িটি উলটে পালতে দেখল কিন্তু বুঝতে পারছে না কি হল। শেষ পর্যন্ত ঘড়িটি খুলল ভিতরে একটি মরা
মাছি দেখতে পেয়ে বাবাকে বলল বাবা ঘড়ির ড্রাইভার মারা গেছে তাই এই ঘড়ি আর চলবে না। বাবা অবাক



-*২*-

এক লোক তার স্ত্রী ইংরেজী শিখতে বলেছে। স্ত্রীও ইংরেজি শিখার জন্য চেষ্টা করতেছে। একদিন দুপুর বেলায় সে তার স্বামীকে ভাত থেতে দিয়ে বলল যে এই নাওতোমার ডিনার।
স্বামী : তুমি একটা গাধা। এখন দুপুর আর এটাকে ডিনার বলেনা বলে লাঞ্চ ।
স্ত্রী : তুমি গাধা, তোমার চৌদ্দ গোষ্ঠী গাধা। এগুলো গতকাল রাতের বাসি ভাত দিয়েছি। এইবার বুঝলে।



-*৩*-

একবার গভীর বনে তিন পিঁপড়া বসে আড্ডা দিচ্ছিল । এই সময়
তাদের
সামনে দিয়ে একটা হাতি হেঁটে যাচ্ছে ।
প্রথম পিঁপড়াঃ চল, শালারে মেরে গুম করে ফেলি! দ্বিতীয়
পিঁপড়াঃ আরে থাক, মেরে ফেলার দরকার নেই ! এর চেয়ে চল মেরে
হাত পা ভেঙ্গে দেই !
তৃতীয় পিঁপড়াঃ আরে থাক থাক ! মাফ কইরা দে ! আমরা তিনজন,
আর বেচারা একলা !



-*৪*-

এক চাকরির ইন্টারভিউ চলছে....
প্রথম প্রার্থী এক বাঙালি পরীক্ষা ঘরে
ঢুকেছে....
শিক্ষকঃ দিল্লী চলো কে ডাক দিয়েছিলেন ?
বাঙালিঃ স্যার নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বোস ।
.
শিক্ষকঃ বাঃ বাঃ খুব ভালো, আচ্ছা একজন দেশপ্রেমিকের নাম বলুন তো ?
বাঙালিঃ স্যার অনেকেই তো আছেন, যেমন মহাত্মা গান্ধী
.
শিক্ষকঃ বাঃ বাঃ খুব সুন্দর, আচ্ছা বলুন তো ভারত কবে স্বাধীন হয় ?
বাঙালিঃ স্যার, ভারত ১৯৪২ সালে স্বাধীন হবো হবো করতে করতে শেষে ১৯৪৭ সালের ১৫ই আগস্ট স্বাধীন হয়
.
শিক্ষকঃ খুব সুন্দর ! আচ্ছা এবার লাস্ট প্রশ্ন, বলুন তো আকাশে কত গুলো তারা আছে ?
.
বাঙালিঃ স্যার এখনও সেটা প্রমানিত হয়নি তবে বিজ্ঞানিদের গবেষণা চলছে
.
শিক্ষকঃ এবার আপনি আসতে পারেন ।
**
বাঙালি চলে যাবার সময় পরের প্রতিযোগী এক বিহারী ছিল। কিন্ত সে বাংলা জানেনা, তাই বাঙালিকে দরজার কাছে খুব তাড়াতাড়ি
জিজ্ঞেস করলো------ভাই তোমাকে কি কি প্রশ্ন ধরলো ?
.
বাঙালিঃ ভাই প্রশ্ন আমার মনে নেই,
তবে উত্তর গুলো হল.....
1) নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বোস
2) অনেকেই তো আছে, যেমন মহাত্মা গান্ধী
3) ১৯৪২ সালে হবো হবো করতে করতে শেষে১৯৪৭ সালে ১৫ই আগস্ট
4) ঠিক এখনও জানা যায়নি, বিজ্ঞানিদের গবেষণা চলছে
.
বিহারির প্রবেশ.....
শিক্ষকঃ আপনার নাম কি ?
বিহারীঃ নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বোস।
.
শিক্ষকঃ (অবাক হয়ে) আপনার বাবার নাম কি?
বিহারীঃ অনেকেই তো আছে, যেমন মহাত্মা গান্ধী
.
শিক্ষকঃ (আরও অবাক হয়ে) আপনার কবে জন্ম হয়েছে ?
বিহারীঃ ১৯৪২ সালে হবো হবো করতে করতে শেষে ১৯৪৭ সালে ১৫ই আগস্ট।
.
শিক্ষকঃ আপনি কি পাগল হয়ে গেছেন ?
বিহারীঃ ঠিক এখনও জানা যায়নি, তবে বিজ্ঞানীদের গবেষনা চলছে l
শিক্ষক : অজ্ঞান.....



-*৫*-

শিক্ষক: ওয়াদা করো সিগারেট পান করবে না
ছাত্ররা: ওকে স্যার, পান করবো না।
শিক্ষক: মেয়েদের পিছে ঘুরবেনা
ছাত্ররা: ঘুরবো না।
…শিক্ষক: ওদের ডিস্টার্ব করবে না।
ছাত্ররা: ওকে, ডিস্টার্ব করবো না
শিক্ষক: দেশের জন্য জীবন কোরবান করবে।
ছাত্ররা: অবশ্যই স্যার, এই রকম পানসে জীবন দিয়া করবই বা কি।



-*৬*-

বিড়াল : তোমার বয়স কত?
হাতি : ৫ বছর।
বিড়াল : কিন্তু তুমি দেখতে তো অনেক বড়।
হাতি : আমি পুষ্টিকর খাবার খাই, তা তোমার বয়স কত?
বিড়াল : ১০ বছর।
হাতি : কীভাবে? তুমি তো দেখতে অনেক ছোট।
বিড়াল : আমি নিয়মিত জিমে গিয়ে ব্যায়াম করি!



-*৭*-

ছোট বোন : দাদা, মা জিজ্ঞাসা করছে তুই কটা মাছ ধরেছিস, তা বলতে।
বড় ভাই : মাকে গিয়ে বল, পরের মাছটা ধরতে পারলে একটা হবে।



-*৮*-

শিক্ষক : নিউটনের বৈজ্ঞানিক তত্ত্ব থেকে আমরা কী শিখলাম?
ছাত্র : ক্লাসে বসে না থেকে গাছতলায় বসাই উচিত।

-*৯*-

এক লোক মশার যন্ত্রনায় অস্থির, মশারী খাটিয়ে ও নিজেকে বাচাতে পারছেনা, কারন, যে কোনভাবে মশারীর ভিতর মশা ঢুকে যায়। তারপর, একদিন লোকটা একটা লেপ দিয়ে পুরো শরীরটা ঢেকে শুয়ে আছে যাতে করে আর তাকে মশা কামরাতে না পারে । লেপের ভিতর হঠাত্ করে একটা জোনাকি পোকাকে দেখে লোকটা চিত্কার করে বলে উঠলো--- বাবারে! বাবা, মশা তো আমাকে টচ্ লাইট দিয়া খুজতাছে!



-*১০*-

দুই মাতাল গ্যালারিতে বসে ক্রিকেট ম্যাচ দেখছে।
এমন সময় ব্যাটসম্যান ছক্কা হাঁকালেন।
১ম মাতাল: ওহ! কী দারুণ একটা গোল দিল!
২য় মাতাল: আরে বুদ্ধু, গোল কি এই খেলায় হয় নাকি? গোল তো হয় ক্রিকেট খেলায়!



-*১১*-

মদ্য পান করতে করতে চিৎকার করে কাঁদছিল জন। একজন জিজ্ঞেস করল, ‘কী, কাঁদছ কেন?’ জন বলল, ‘যে মেয়েটাকে ভোলার জন্য পান করছি, তার নাম মনে পড়ছে না!’



-*১২*-

কোন দেশের পুলিশের দক্ষতা কেমন সেই নিয়ে কয়েক দেশের পুলিশের উচ্চ পর্যায়ের আলোচনা চলছে।
জাপানী পুলিশ : যে কোন ঘটনা কে ঘটিয়েছে সেটা জানতে আমাদের ৭২ ঘন্টা সময় লাগে।
বৃটিশ পুলিশ : আরে দূর আমরা দুনিয়ার সেরা পুলিশ । অন্যায় কারীকে চিনতে আমাদের সর্বোচ্চ ২৪ ঘন্টা সময় লাগে ।
আমেরিকার পুলিশ : আমারাও ২৪ ঘন্টার মধ্যে যে কোন ক্রিমিনালকে পাকড়াও করতে পারি।
বাংলাদেশের পুলিশ : আমাদেরকে না জানিয়ে কোন ঘটনাই ঘটে না।



-*১৩*-

একটি যুদ্ধে কয়টি অস্ত্র লাগে? উত্তর: দুটি। একটি দিয়ে শত্রুপক্ষকে গুলি করা হয় এবং অন্যটি শত্রুপক্ষের কাছে বিক্রি করা হয়। যেন বিপক্ষ দল পাল্টা আঘাত করতে পারে।



-*১৪*-

সরদারজিকে কীভাবে ঘণ্টার পর ঘণ্টা ব্যস্ত রাখা যায়? উত্তর: সরদারজিকে একটি কাগজ দিন। যার উভয় দিকে লেখা আছে, ‘অপর পৃষ্ঠায় দেখুন!’



-*১৫*-

মানুষের বিভিন্ন ধরনের রক্তের গ্রুপ হয় কেন? : মশারা যাতে বিভিন্ন ফ্লেভারের স্বাদ গ্রহণ করতে পারে।

Load comments