প্রিয় পরিবার এসএমএস family Bangla sms

প্রিয় পরিবার এসএমএস family Bangla sms


(১) “ একটিমাত্র পুষ্পিত সুগন্ধ বৃক্ষে যেমন সমস্ত বন সুবাসিত হয়, তেমনি একটি সুপুত্রের দ্বারা সমস্ত কুল ধন্য হয়।”
“ একটি কুবৃক্ষের কোটরের আগুন থেকে যেমন সমস্ত বন ভস্মীভূত হয়, তেমনি একটি কুপুত্রের দ্বারাও বংশ দগ্ধ হয় ।”
~ চাণক্য চাণক্য

(২) “ মধ্যবিত্ত পরিবারের মানুষগুলোই ধরণীর আসল রূপ দেখতে পায়।"
~~ হুমায়ূন আহমেদ

(৩) “দুনিয়ার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হচ্ছে পরিবার।”
  প্রিন্সেস ডায়ানা (১৯৬১- ১৯৯৭)
সাবেক ব্রিটিশ রাজবধূ

(৪) অনেকদিন আগের কথা,
  যখন Windows এর মানে ছিল জানলা আর application মানে ছিল কাগজে লেখা একটা আবেদনপত্র..
  যখন keyboard মানে ছিল পিয়ানো আর mouse ছিল সামান্য একটা প্রাণী..
  যখন file ছিল অফিসের কোনো খুব গুরুত্বপূর্ণ কাগজ রাখার জায়গা.আর hard drive ছিল খুব বাজে একটা সফর..
  যখন cut করা হত ছুড়ি দিয়ে আর paste করা হত আঠা দিয়ে
  যখন web মানে ছিল মাকড়সার থাকার জায়গা আর virus ছিল জ্বর
এবং যখন apple আর blackberry শুধু ফল হিসাবেই বিখ্যাত ছিল..
  তখন আমাদের কাছে অনেকটা সময় থাকত আমাদের পরিবারকে দেওয়ার জন্যে..

(৫) আগেকার দিনে মা-বাবা চাইত তাদের মেয়ের বিবাহ যেন কোনো ভালো ছেলের সাথে হয়... আর এখনকার মা-বাবা চায় তাদের ছেলের বিবাহ যেন কোনো ভাল মেয়ের সাথে হয়...

(৬) আজ আমাদের জীবনে এমন কিছু সমস্যা আসে যেগুলো আপাতভাবে মনে হয় অতি জটিল যে মা-বাবার সাথে শেয়ার করা যাবে না... কিন্তু একটা কথা সবাই মনে রেখো,আমাদের অভিভাবকরা আমাদের বয়স পেরিয়ে এসেছে...হতে পারে তারা যে সমস্ত সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন তা আমাদের সমস্যার থেকে আলাদা...কিন্তু চরিত্রগতভাবে নিশ্চই তারা একরকম... তাই নির্ভয়ে মা বাবাকে তোমাদের সব সমস্যাগুলো বুঝিয়ে বল...তাদের থেকে ভালো সাজেশন কারো পক্ষে দেওয়া সম্ভব নয়...

(৭) আজকাল আমরা ফেসবুক,টুইটার,বন্ধুদের সাথে ঘুরতে যাওয়া জাতীয় কাজে এত ব্যস্ত যে পরিবারকে সময় দেওয়ার কথা ভুলেই যাই...একবার ভেবে দেখি না যে এই পরিবারই আমার সব আশা ভরসার স্থল... আজ থেকে এস সবাই চেষ্টা করি আমাদের \"ব্যস্ত\" রুটিন-এর মাঝে পরিবারের জন্যও একটু জায়গা রাখতে...

(৮) আমাদের বাবা-মায়েরা আমাদের এত শক্তি যোগায়,
যে আমরা কখনো কখনো ভুলে যাই যে তারাও খুব ভঙ্গুর...
আমাদের দেওয়া কষ্ট কখনো কখনো
তাদের ভেঙ্গে চুরমার করে দেয়..
তবু তারা মুখ বুজে থাকে আমাদের মুখের দিকে চেয়ে...

(৯) আমরা বড় হতে এত বেশি ব্যস্ত থাকি যে কখনো কখনো এটাই ভুলে যাই যে আমাদের বাবা-মায়েরাও বৃদ্ধ হচ্ছেন... তাঁদের যত্ন নাও...এতদিন তাঁরা তোমাকে আগলে রেখেছেন,এবার তোমার পালা...

(১০) এই পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ শিক্ষক নিজের বাবা, যে ছেলে গোটা ছাত্রজীবন তার বাবার সাথে বসে রাতের খাবার খাবে, সে কোনোদিনই নীতি থেকে বিচ্যুত হবে না।
~~ হুমায়ুন আহমেদ।

(১১) এই ভালবাসার কী কোনো তুলনা আছে?
মাস শেষে বেতন পেয়ে লোকটি ছেঁড়া জুতার দিকে তাকিয়ে এক জোড়া ভালো জুতা কেনার চিন্তা করলো। হঠাত তার স্ত্রীর কল, "ছেলের বায়না করা স্মার্টফোনটা কি এবার কিনে দিতে পারবে?" অতঃপর মুচির কাছে জুতা সেলাই করে হাসিমুখে ছেলের স্মার্টফোনটা কিনেই সে বাসায় ফিরলো।

(১২) একজন পিতার তার সন্তানকে বলা সবচেয়ে দামী কথা:
সবসময় চেষ্টা কারো আমার উপদেশ অনুসরণ করার..
তার কারণ এটা নয় যে আমি সবসময় ঠিক..
তার কারণ এটা যে জীবনে ভুল পদক্ষেপ নেওয়ার অভিজ্ঞতা তোমার চেয়ে আমার বেশি..

(১৩) একজন ভালো মা আর একজন ভালো স্ত্রী পাওয়াটা আসলে স্বর্গ থেকে আসা একটা বর-এর মতন... যে পেয়েছে সে প্রকৃত ধনী...

(১৪) একজন মেয়ে তার স্বামীর কাছে রানীর সম্মান নাও পেতে পারে, কিন্তু প্রত্যেক মেয়েই তার বাবার কাছে একেকজন রাজকন্যা।

(১৫) একটা অদ্ভুত সত্য:
প্রত্যেক মা ভাবেন,
তাঁর স্বামীর থেকে অনেক ভালো স্বামী যেন মেয়ের ভাগ্যে থাকে..
কিন্তু এই ব্যাপারে তিনি নিশ্চিত থাকেন যে তিনি যত ভালো স্ত্রী হয়ে উঠেছেন.তাঁর ছেলে চেষ্টা করলেও তেমন স্ত্রী ঘরে আনতে পারবে না..

(১৬) একটি পরিবার তখনি সম্পূর্ণ হয় যখন তার কেন্দ্রে থাকেন একজন মাতৃরুপী কেউ যিনি সবাইকে আগলে রাখবেন...

(১৭) একটি মেয়ে একটি ছেলেকে ভালবাসত..
কিন্তু শেষ অবধি তার বাবা মা ছেলেটাকে মেনে নিল না..
তারা সিদ্ধান্ত নিল পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করার!
কোর্টে পৌঁছে মেয়েটা যখন সাইন করতে গেল,
দেয়ালে ঝোলানো একটা পোস্টার দেখে তাকে নিজের সিদ্ধান্ত বদলে ফেলতে হল!
দেয়ালে একটা বাচ্চা মেয়ের ছবি ছিল,
নিচে লেখা ছিল,এই জন্যে মেয়ে জন্ম দিতে ভয় পেতাম!

(১৮) একটি মেয়ের সেরা উত্তর:
বাবা:তুমি কাকে বেশি ভালোবাসো? আমাকে না তোমার স্বামীকে?
মেয়ে:কি জানি..বুঝতে পারি না..
যখন আমি তোমাকে দেখি,আমি ওকে ভুলে যাই,
আর যখন আমি ওকে দেখি আমার তোমার কথা আরো বেশি করে মনে পড়ে..

(১৯) একটি সুখী পরিবারে প্রত্যেক সদস্য পরস্পরের পরিপূরক হয়..আর অসুখী পরিবারের সদস্যরা পরস্পরের মূল্য দিতে জানে না..

(২০) একমাত্র পরিবার-ই এমন জায়গা যেখানে তুমি তোমার মনের কথা খুলে বলতে পারবে.. কোনো ভাবনা চিন্তা ছাড়াই...বাকি সবার সামনে তোমায় একটু হলেও বুঝে শুনে কথা বলতে হবে..

(২১) কখনো কখনো পরিবারের খুশির জন্যে ভালবাসার বিসর্জন দেওয়াটা বেদনাদায়ক ঠিকই,
কিন্তু কখনো এরকম কিছু ভেবো না যে
তাকে পেলে তুমি বেশি খুশি থাকতে!
প্রথমত ঈশ্বর এমন অনেক কিছু দেখতে পান ও জানেন যা আমরা জানি না বা দেখতে পাই না,তাই তিনি যা করেন তা মঙ্গলের জন্যেই করেন.
দ্বিতীয়ত,তাকে পেয়ে তোমাকে নিজের পরিবারকে হয়তো হারাতে হত যেটা কখনই কাম্য নয়!

(২২) কে কতটা ধনী তা আপাতভাবে হয়ত তার ধনসম্পত্তির পরিমান দেখে বোঝা যায়.. কিন্তু প্রকৃতপক্ষে সেই ধনী যার কাছে পরিবারের ভালবাসার সম্পদ আছে...

(২৩) কোনো পরিবার-ই নিখুত নয়.. তর্ক,ঝগড়া,বাকবিতন্ডার পরেও এক্ল্টা পরিবার শেষে একটা পরিবার-ই থাকে.. পরিবারের ভালবাসা কোনো কিছু দিয়েই প্রতিস্থাপন করা সম্ভব নয়..

(২৪) কন্যা সন্তান মানে এখন আর টেনশন না.. বর্তমান যুগে কন্যা মানে "ten son " অর্থাত একটি কন্যা এখন দশটি পুত্রের সমান..

(২৫) জীবনে যে কোনো বিপদে মনে মনে তোমার মা-বাবার কথা মনে কোরো...এতে তোমার মুশকিল আসান হয়তো হবে না...কিন্তু বিপদের মুখোমুখি হতে তোমার ভয় লাগবে না...

(২৬) জীবনে দুজনকে কখনও কষ্ট দিও না...
প্রথম,যে তোমার জয়প্রাপ্তির জন্য সারা জীবন নিজের খুশীর চেয়ে তোমার খুশীকে বেশি প্রাধান্য দিয়ে এসেছে-তোমার পিতা
দ্বিতীয়, যাকে তুমি নিজের সব দুঃখে ডেকেছ-তোমার মা...

(২৭) জীবনে দুজনকে কখনো ভুলো না.. যে নিজে সবকিছু হারিয়েছে তোমাকে জেতানোর জন্যে-তোমার বাবা! যে তোমার সব দুঃখে তোমার সাথে তোমার পাশে ছিল-তোমার মা!

(২৮) জীবনের সবচেয়ে মূল্যবান উপহার তোমার মাতা-পিতা.. তাদের কখনো কষ্ট দিও না.. কারণ তুমিও একদিন বাবা/মা হবে..

(২৯) জন্মের পার আমাদের জীবনে একে একে অনেকে আসে..আবার চলেও যায়...কেউ বা থেকে যায়.. কিন্তু তারা কেউ এমন নয় যে আর পাওয়া যাবে না.. শুধুমাত্র মা বাবাই এমন এক অমূল্য সম্পদ,যারা অদ্বিতীয়...

(৩০) যখন সারা পৃথিবী তোমার দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবে,তখন কয়েকজন র্থাকবে যে তোমার সঙ্গ ছাড়বে না..তোমার সব বিপদে তোমায় সাহস যোগাবে..তারা তোমার পরিবারের সদস্য.. #পরিবারকে ভালোবাসো..

(৩১) যতই ঝগড়া হোক,যতই তোমায় বকাবকি করুন...তোমায় সবচেয়ে বেশী ভালবাসেন তোমার বাবা-মা...

(৩২) যদি জীবনে বড় হতে চাও তাহলে কখনো নিজের বাবা মা কে অশ্রদ্ধা কোরো না.. তাদের চেয়ে বেশি আর কেউ তোমার ভালো চাইবেন না কখনো!

(৩৩) তোমার পরিবার অনেকটা একটা ছোট্ট দেশ চালানোর মতন...সবার মন রেখে, সবার সুযোগ সুবিধা বজায় রেখে তবে পরিবারের সকল সদস্যকে সুখে রাখা যায়.. তাই কখনো ধৈর্য হাব্রিও না..পরিবার-ই তোমার আসল সম্পদ..

(৩৪) তোমার পরিবার বেছে নেওয়ার ক্ষমতা তোমার নেই..ওরা ভগবান প্রদত্ত..ঠিক যেমনভাবে তুমি তাদের কাছে ভগবান প্রদত্ত.. তাই তাদের উপরে রাগ কারো,কিন্তু রেগে থেক না.. ভগবান যা করেন মঙ্গলের জন্যই করেন..

(৩৫) তোমার বাইরের জগতে যাই হয়ে থাক না কেন..তার আঁচ কখনো তোমার পরিবারের উপর পড়তে দিও না..হতে পারে তোমার সবকিছুই তোমার পরিবারের জন্যে..কিন্তু তোমার পরিবারের কাছে তুমি ই তাদের জগত..

(৩৬) তোমার বাইরের জগতের প্রভাব যেন কখনই তোমার পরিবারের সদস্যদের উপর না আসে.. তবেই তুমি জীবনে সুখী থাকতে পারবে..

(৩৭) তোমার সবচেয়ে কাছের যে মানুষগুলো তোমায় ভালবাসে..তোমার ভালো চায়...তোমার খেয়াল রাখে...তারাই তোমার পরিবার..

(৩৮) দিনের শেষে কর্মক্ষেত্রের সব চাপ সহ্য করার পার যেখানে যেতে ইচ্ছা করে-সেটা তোমার বাড়ি.. আর সব রাগ-অভিমান সত্তেও যাদের ভালো না বেসে থাকা যায় না-তার তোমার পরিবার.. দুটিই যদি তোমার জীবনে থাকে তাহলে তোমার থেকে ভাগ্যবান লোক নেই..

(৩৯) দুনিয়ার বাকি সবাই একদিকে আর তোমার পরিবার আর একদিকে....তোমার পরিবার তোমার সুখে দুঃখে তোমার সবচেয়ে বড় শক্তি...তাই পরিবারের মধ্যে সর্বদা শান্তি বজায় রাখার চেষ্টা করো এবং পরিবারের ওপর কখনো কোনো বিপদের আঁচ আসতে দিও না...

(৪০) পৃথিবীতে একটিমাত্র জিনিস আছে যেটা অমূল্য কিন্তু বিনামূল্যে জন্ম থেকেই সবাই পেয়ে যায়... সেটা হল মা-বাবার ভালবাসা.. নিঃস্বার্থ এবং প্রকৃত ভালবাসা...

(৪১) পৃথিবীতে তোমার শ্রেষ্ঠ সম্পদ হল: তোমার মাতা-পিতা.

(৪২) পৃথিবীতে ভালোবাসা থেকে সৃষ্টি নিচের তিনটি শব্দ....... 1.Boyfriend 2.Girlfriend 3.Family কিন্তু একটা ব্যাপার লক্ষ করুন Boyfriend এবং Girlfriend এই শব্দ দুইটির শেষের অংশ হলো \"end\". এজন্য এ সম্পর্কগুলো একদিন শেষ হয়ে যায়। আর ৩য় শব্দটি হলো Family, যার প্রথম তিনটি অক্ষর Fam=Father and mother এবং শেষের তিনটি অক্ষর ily=i love you যার শুরু বাবা-মাকে নিয়ে, আর শেষ তাদের ভালোবেসে।

(৪৩) পৃথিবীতে সব নারীদের ডাক উপেক্ষা করা যায়, কিন্তু 'মা' এর ডাক উপেক্ষা করার ক্ষমতা প্রকৃতি আমাদের দেয়নি!

(৪৪) পৃথিবীর আর সবাইকে বোকা বানিয়ে তুমি আনন্দ পেতে পারো..কিন্তু কখনো নিজের পরিবারকে বোকা বানানোর চেষ্টা কোরো না.. কারণ তোমার বিপদে আপদে যারা তোমার সঙ্গ দেবে তারা তোমার পরিবার...

(৪৫) পৃথিবীর কোনো মা কি তার সন্তান কে কাঁদতে দেখে হাসতে পারে? পারে না...কিন্তু সব মা-ই তাদের সন্তান্নের কান্না শুনে একবার হেসেছিল...সেটা হলো সেইদিন যেদিন তাদের সন্তানের জন্ম হয়েছিল..

(৪৬) পৃথিবীর সব চেয়ে বড় সুখ কি জান?
মা-বাবার আদর ..
সব চেয়ে বড় কষ্ট কি জান?
মা-বাবার চোখের জল.
সব চেয়ে অমুল্য রতন কি জানো?
মা-বাবার ভালোবাসা ॥।

(৪৭) পৃথিবীর সমস্ত ভালোবাসা একসাথে করলেও নিজের মা এর ভালোবাসার সামনে তুচ্ছ মনে হবে; মা ছাড়া সন্তান যেমন বাঁচে,আত্মা ছাড়া মানুষও তেমনই বাঁচে....

(৪৮) পপ্রিবারকে তুমি একটা দল বলতে পারো, একটা নেটওয়ার্ক বলতে পারো,একটা গোষ্ঠী বলতে পারো...কিমবা একটা পরিবার-ই বলতে পারো.. যাই বল না কেন...এটাই তোমার জীবনের সবচেয়ে প্রয়োজনীয় সাধন বাঁচার পক্ষে ..

(৪৯) পরিবার অনেকটা একটা তারওয়ালা বাদ্যযন্ত্রের মতন... বাদ্যযন্ত্রে যেমন তারের সঠিক ভাবে বাঁধা থাকলেই ঠিক সুর বেরয়...পরিবারেও তেমনি সকল সদস্যের একসাথে থাকাতেই পরিবারের সার্থকতা ও সুখ.. আর বাদ্যযন্ত্রে যেমন একটি তার চিরে গেলেও তাল কেটে যায়,পরিবারেও তেমনি একজন সদস্য-ও যদি মন খারাপ করে বসে থাকে,পরিবারের সুখের তাল কেটে যায়.. তাই চেষ্টা করো সবসময় পরিবারকে সুখে রাখার..

(৫০) পরিবার মানে শুধু রক্তের সম্পর্ক থাকা নয়,পরিবার হল তোমার জীবনের সেই সমস্ত মানুষগুলো যারা তোমায় নিজেদের জীবনে চায়..তুমি যেমনই হও না কেন যারা তোমায় ভীষণ ভালবাসে...স্নেহ করে...তোমার খেয়াল রাখে..তোমার মুখে একটু হাসি ফোটানোর জন্যে যারা সবকিছু করতে পারে..

(৫১) পরিবার হচ্ছে একজন মানুষের, শেষ্ঠ সম্পদ। যা (পরিবার) হারিয়ে গেলে, কিংবা যাতে দুঃখ কষ্ট প্রবেশ করলে, ঐ মানুষ গুলোর আর কিছু থাকেনা।

(৫২) পরিবারকে আগে ভালবাসতে শেখো,তবেই বাকি পৃথিবীর লোকেরা তোমায় ভালবাসবে..

(৫৩) পরিবারকে আমরা একটা অক্টোপাস এর সাথে তুলনা করতে পারি..যার দৃঢ় বাহুপাশ থেকে মুক্ত হওয়া অসম্ভব..আর হয়ত মনের গভীরতম প্রদেশ থেকে শত রাগ সত্ত্বেও কেউ চায় না আলাদা হতে..

(৫৪) পরিবারের আসল মূল্য তখন বোঝা যায় যখন বাড়িতে ৩টে আপেল আসে আর বাড়ির সদস্যসংখ্যা হয় ৪.. তখন হয় বাবা নয় মা নীয়স্চি বলবে, "এখন আপেল খেতে ভালো লাগছে না আমার" কিম্বা "আপেল খেতে আমার একদম ভালো লাগে না"

(৫৫) পরিবারের একসাথে থাকাটা...তাদের সঙ্গবদ্ধতাই তোমায় প্রকৃতপক্ষে শক্তিশালী করে তোলে..

(৫৬) পরিবারের মধ্যে যতই রাগারাগি হোক,ঝগড়া হোক বা ভুল বোঝাবুঝি হোক,তারাই একমাত্র তোমার আপন যারা সেসব কিছু সত্তেও তোমায় ভালোবেসে যাবে..

(৫৭) পরিবারের মূল্যবোধকে গুরুত্ব দেওয়া অবশ্যই জরুরি...কিন্তু পরিবারের মূল্য বোঝা তার আগে প্রয়োজনীয়..

(৫৮) পরিবারের মহত্ব তর পক্ষেই বোঝা সম্ভব,যার কাছে পরিবার আছে...

(৫৯) পরিবারের সকল সদস্য যদি পরিবারের বাকি সদস্যদের প্রতি সমান ভাবে নিজের দায়িত্ব পালন করে আর প্রয়োজনে পাশে দাঁড়ায়,তবেই সেই পরিবার একটি আদর্শ পরিবারের রূপ নেয়..

(৬০) পরিবারের সদস্যদের একসাথে থাকাটাই সেটাকে একটা সফল পরিবারের রূপ দেয়..

(৬১) প্রশ্ন: যাদের মা থাকে না তাদের জন্য কে প্রার্থনা করে?
উত্তর: ঝিল শুকিয়ে গেলেও মাটি থেকে ভিজে ভাব টা কখনো যায় না.. তেমন ভাবেই মা মারা গেলেও তার সন্তানের জন্যে সবসময় প্রার্থনা করে যায়..

(৬২) বাবা
যেদিন আমি ছোট ছিলাম
যুবক ছিলেন বাবা
সেদিনটি আসবে ফিরে
যায় কি তা আজ ভাবা?

বাবার কাছেই হাঁটতে শিখি
শিখি চলা-বলা
সারাটাদিন কাটত আমার
জড়িয়ে তার গলা
বাবার হাতেই হাতে খড়ি
প্রথম পড়া-লেখা
বাবার চোখেই প্রথম আমার
বিশ্বটাকে দেখা...
আজকে বাবার চুল পেকেছে
গ্রাস করেছে জরা
তবু বুঝি বাবা থাকলেই
লাগে ভুবন ভরা
বাবা এখন চশমা পড়েন
পার করেছেন আশি
তবু এখনও আগের মতনই
বাবাকে ভালবাসি...

(৬৩) বাবা মারা যাওয়ার পর ছেলে মা-কে বৃদ্ধাশ্রমে পাঠিয়ে দিল.. কিছুদিন পরে সেখান থেকে ছেলেটির কাছে ফোন এলো,"তোমার মা খুব সিরিয়াস" ছেলেটি মাকে দেখতে এলো...দেখল মা মৃত্যুশয্যায়.. চোখে জল নিয়ে ছেলে মা কে জিজ্ঞাসা করল,"তোমার জন্যে আমি কি করতে পারি মা?" মা একটু হেসে বলল,"এই বৃদ্ধাশ্রমে আমার ঘরের ফ্যানটা খারাপ..একটা নতুন ফ্যান লাগিয়ে দাও এখানে.." ছেলে অবাক হয়ে বলল,"এতদিন তুমি এখানে ছিলে,এতদিন কিছু বল নি,আর আজ যখন তোমার কাছে আর কয়েক ঘন্টা বাকি আছে তখন তুমি এরকম একটা অনুরোধ করছ.." মা বলল."কারণ আমি তো এই গরমটা সহ্য করে নিয়েছি, কিন্তু যখন তোমার ছেলেরা তোমায় এখানে পাঠাবে ,তুমি এটা সহ্য করতে পারবে না.."

(৬৪) বাবা: তুই কাকে বেশী ভালোবাসিস.তর মা কে না আমাকে?
ছেলে: দুজনকেই
বাবা:না আমায় একজনের কথা বলতে hbe..
ছেলে: কিন্তু আমি তো দুজনকেই ভালবাসি..
বাবা:আচ্ছা ধর আমি আমেরিকায় গেলাম আর তোর মা প্যারিস এ গেল, তাহলে তুই কোথায় যাবি?
ছেলে: প্যারিস এ..
বাবা: তাহলে তো তুই তোর মা কে বেশী ভালোবাসিস..
ছেলে: না তা কেন,প্যারিস তো আমেরিকার থকে বেশী সুন্দর..
বাবা:উফ! আচ্ছা ধর, তোর মা আমেরিকায় গেল আর আমি প্যারিস এ গেলাম,তাহলে?
ছেলে: আমেরিকায়..
বাবা: কেন?
ছেলে: কারণ প্যারিস তো আগেই দেখে নিলাম..
বাবা|:চল রে মায়ের চামচা,স্কুলে চল..

(৬৫) বাড়ির পরিবেশ যদি সুস্থ হয়..আর পরিবার যদি রুচিশীল হয়,তবে সন্তানের জীবনের ভিত ঠিকমতন গঠিত হবে..

(৬৬) ভাইবোনের মাঝের সম্পর্ক এতটাই মধুর যে তা কোনভাবেই ভেঙে যাওয়া সম্ভব নয়...

(৬৭) ভালবাসার জন্যে কখনো নিজের বাবা মা কে কষ্ট দিও না যেন! তোমার বাবা-মা তোমাকে জন্ম দিয়েছেন, তারা তোমার সব ছোটখাটো প্রয়োজনগুলো মিটিয়ে এসেছেন, তাদের প্রতি বিশ্বস্ত না থেকে তুমি এমন কারো কাছে বিশ্বস্ত হতে চাইছ যাকে তুমি কয়েক বছর হলো চিনেছ?

(৬৮) মা জননী চোখের মণি, সীম তোমার দান., ঈশ্বরের পরে তোমার আসন আকাশের সমান.. ত্রিভুবনে তোমার মত হয়না কারো মান...

(৬৯) মাকে তুই কষ্ট দিয়ে,করিস নারে ভুল মা হারালে হারাবি তুই,আল্লাহ রাসুল তুই যতই পারিস,মার যত্ন সেবা কর মা তখনও রইবে আপন যখন সবাই হবে পর!

(৭০) মা-গ্বাবাকে স্বর্গে যেতে সাহায্য যে করে সে ছেলে.. আর বারিকেই স্বর্গের মতন সুন্দর বানিয়ে তোলে যে সে কন্যা.. সব কন্যাসন্তানদের forward কারো

(৭১) মায়েরাই হল প্রতিটি বাড়ির আসল কর্ত্রী ও শাসক...কারণ মায়েদের ছাড়া আমরা সকলেই অচল হয়ে পড়ি..সবদিকে খেয়াল রেখে যে বাড়িকে প্রকৃত অর্থে "বাড়ি" করে তোলে,সে-ই তো "মা"...

(৭২) মিষ্টি ভালবাসা:
বোনকে একটা চাপড় মেরে ভাইয়ের সাফাই,\"একজন মানুষ আসলে তাকেই মারে যাকে সে সবচেয়ে বেসি ভালবাসে.."
ভাইকে দুটো চড় মেরে বোনের যুক্তি:হ্যা রে দাদা,তর কিমনে হয়,আমি তোকে কম ভালবাসি?

(৭৩) মেয়েদের মন হয় নরম এবং অনুভূতিপ্রবণ। সে কারণে ওদের উপর ভালমন্দ দু’টি দিকেরই প্রভাব অত্যন্ত তীব্র হয়ে থাকে। সুতরাং মেয়েদের যদি সময়মত সুশিক্ষা দেওয়া না হয় তবেএর বিষম ফল পিতা মাতাকে দুনিয়া ও আখেরাতে সমভাবে ভোগ করতে হবে।

(৭৪) মনে রেখো পৃথিবীর সবচেয়ে মূল্যবান দুটি উপহার হলো:
জীবনসঙ্গী: ভগবান যাকে তোমার কাছে উপহার পাঠিয়েছে..
মা-বাবা:উপহার হিসেবে ভগবানই নিচে নেমে এসেছে...

(৭৫) মনের মতন স্ত্রী আর সংসার হলে জীবনের সব দুঃখ, সব ব্যর্থতা, সব সমস্যার মোকাবেলা করা যায়।

(৭৬) মুমিন মুমিনের অংশ। সে তার ভাইয়ের জন্য আয়না স্বরূপ; সে তার ভাইয়ের মধ্যে অপছন্দনীয় কিছু দেখলে তাকে সংশোধন ও ঠিক-ঠাক করে দেবে এবং গোপনে ও প্রকাশ্যে তার কল্যাণ কামনা করবে।
হাসান বসরি (র্)

(৭৭) সেই মা বাবার মনে কষ্ট দিও না যারা তোমাকে জন্ম দিয়েছেন ! সেই মা এর মনে কষ্ট দিও না যে তোমাকে কথা বলা শিখিয়েসেন ! সেই বাবার মনে কষ্ট দিও না যে তোমার সুখের জন্য নিজের সাস্থ্যের দিকে না তাকিয়ে সারাটা জীবন পরিশ্রম করেছেন !

(৭৮) সেই মায়ের সাথে উচ্চস্বরে কথা বলো না যেই মা তোমাকে কথা বলা শিখিয়েছেন।।
~~ হজরত আলী (রাঃ)

(৭৯) সেরা লাইন:
একদিন একজন মা মন খারাপ করে চুপ করে বসে আছেন:
সন্তান: তুমি পৃথিবীর দ্বিতীয় সবচেয়ে সুন্দরী মহিলা..
মা: আচ্ছা? প্রথম কে?
সন্তান: সেটাও তুমি..কিন্তু তখন যখন তুমি হাসো..
বলা বাহুল্য,মা শুনেই হেসে ফেলল...

(৮০) সব পরিবারেই কিছু ব্যক্তিগত নিজস্ব সমস্যা থাকে, কিন্তু সেই সমস্যা সামলেও যাঁরা একসাথে থাকতে পারে,তারা পরিবারের মর্যাদা জানে...

(৮১) সবার জীবনে এমন কিছু কষ্ট আছে যা সে মানুষটি ছাড়া কেউ বুঝবে না,, প্রেমিকা হারালে কিছু দিন পরে কষ্টে কাটার পর আবার নতুন করে অন্য একটি প্রেম করা পর সেই কষ্টটা সময়ের সাথে সাথে ভুলে থাকা যায়... কিন্তু পিতা-মাতার সাথে ঝগড়ার কষ্টটা কাউকে বলা যায় না এই কষ্টটা কতটা বিষাদময় যা কেউ বুঝবে না,,।

(৮২) সময় বদলে যায় জীবনের সঙ্গে, জীবন বদলে যায় সম্পর্কের সঙ্গে, সম্পর্ক বদলায় না আপনজনের সঙ্গে, খালি আপনজন বদলে যায় সময়ের সঙ্গে..

(৮৩) হৃদয়স্পর্শী না মর্মভেদী-একে কি বলব জানি না আমি... একদিন মোবাইল রিপেয়ার সপ-এ দাড়িয়ে তার মালিকের সাথে কথা বলছি,এমন সময় এক বৃদ্ধা এলেন তাঁর ফোন নিয়ে.. বৃদ্ধা: দেখুন তো আমার ফোনে কি সমস্যা হয়েছে.. মালিক(অনেকক্ষণ চেক করে): কি,কিছু সমস্যা হয় নি তো.. বৃদ্ধা(চোখে জল নিয়ে): তাহলে আমার চেলেদুতর ফোন কেন আসে না আমর ফোনে..