Thursday, May 10, 2018

শবে মেরাজ এসএমএস best islamic bangla sms

শবে মেরাজ এসএমএস best islamic bangla sms

আল্লাহ আমাদের সকলকে হেদায়েত দান করুক। আমীন।

দ্বিনী ভাই ও বোনেরা আসুন, আমাদের প্রিয় নবী (সাঃ) কর্তৃক আনীত এবং  মহান আল্লাহ-পাকের নিকট থেকে নির্দেশীত "পাঁচ অয়াক্ত নামায" কায়েম করি এবং অন্যকেউ উৎসাহিত করে দুনিয়া ও আখেরাতের মুক্তির পথ সুগম করি । আল্লাহ-পাক আমাদের সকল্কে ক্ষমা করুন । আমীন । 



পাঁচ ওয়াক্ত ফরজ নামায প্রাপ্তি ঃ  এখানে হজরত রাসুলুল্লাহ (সা.) এর উম্মতের ওপর ৫০ ওয়াক্ত নামাজ ফরজ করা হলো। পরবর্তী সময়ে পুনঃ পুনঃ আবেদনের প্রেক্ষিতে আল্লাহপাক দৈনিক পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ উম্মতে মুহাম্মদির ওপর ফরজ করেন, যা ইসলামের পাঁচটি রুকনের অন্যতম রুকন বা ভিত্তি। আর এই নামাজই মানুষকে যাবতীয় পাপাচার ও অনাচার থেকে রক্ষা করে সত্যিকারের মানুষ হিসেবে তৈরি করে।

মহান আল্লাহ-পাকের সাথে সাক্ষাত লাভ ঃ  বায়তুল মামুরে হজরত জিবরাইল (আ.) কে রেখে তিনি ‘রফরফ’ নামক আরেকটি ঐশী বাহনে চড়ে আল্লাহ তায়ালার দরবারে হাজির হন। কোনো কোনো বর্ণনায় আছে, মেরাজ রজনীতে হজরত রাসুলুল্লাহ (সা.) আল্লাহ তায়ালার এতটা কাছাকাছি গিয়েছিলেন যে, দু’জনের মধ্যখানে মাত্র এক ধনুক পরিমাণ ব্যবধান ছিল।

স্বচক্ষে জান্নাত ও জাহান্নাম প্রত্যক্ষ করেন ঃ  সপ্তম আসমানের পর হজরত মোহাম্মাদ (সা.) বায়তুল মামুর পরিদর্শন করানো হয়। বায়তুল মামুরে দৈনিক ৭০ হাজার ফেরেশতা প্রবেশ করেন। ফেরেশতাদের সংখ্যা এত বেশি যে, যারা একবার এই বায়তুল মামুরে প্রবেশ করেন কিয়ামত পর্যন্ত তাদের সেখানে প্রবেশ করার পালা আসে না। সেখানে হজরত রাসুলুল্লাহ (সা.) স্বচক্ষে জান্নাত ও জাহান্নাম প্রত্যক্ষ করেন।

শবে মেরাজ এসএমএস best islamic bangla sms

বোরাকে চড়ে ঊর্ধ্ব আকাশে গমন ঃ  নবী (সা.) এর জীবনে অন্তত তিনবার এমনটা হয়েছে। তারপর সেখান থেকে তিনি ‘বোরাক’ নামক এক ঐশী বাহনে চড়ে বায়তুল মোকাদ্দাসে এসে সব নবীর ইমাম হয়ে দুই রাকাত নামাজ আদায় করেন। তারপর তিনি বোরাকে চড়ে ঊর্ধ্বে গমন করতে থাকেন। একের পর এক আসমান অতিক্রম করতে থাকেন। পথিমধ্যে হজরত মূসা (আ.)সহ অনেক নবী-রাসুলের সঙ্গে তার সাক্ষাৎ হয়।

পবিত্র কোরআনে এ সম্পর্কে সূরা বনি ইসরাইলে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।  মহান আল্লাহ-পাক সুরা বনী ইসরাইলের -১ নং আয়াতে ইরশাদ করেন,  তিনি পরম পবিত্র ও মহিমাময় সত্তা, যিনি স্বীয় বান্দাকে রাত্রিতে ভ্রমণ করিয়েছিলেন মসজিদে হারাম থেকে মসজিদে আকসা পর্যন্ত, যার চতুর্দিকে আমি বরকতময়তার বিস্তার করেছি, তাকে আমার নিদর্শন হতে প্রদর্শনের জন্য। নিশ্চয় তিনি সর্বশ্রোতা, সর্বদ্রসষ্টা।

আমাদের প্রিয় নবী (সা.) এর সব মোজেজার মধ্যে অন্যতম শ্রেষ্ঠ মোজেজা হলো "মেরাজ"। এ রাতে তিনি বায়তুল মোকাদ্দাসে নামাজে সব নবীর ইমাম হয়ে সাইয়্যিদুল মুরসালিনের আসনে অধিষ্ঠিত হয়েছেন। ফলে এ রাতটি নিঃসন্দেহে তার শ্রেষ্ঠত্বের গৌরবোজ্জ্বল নিদর্শন বহন করে।

Load comments